বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ১০:২৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সৌদি আরবে পৌঁছেছেন ১৫ লাখের বেশি বিদেশি হজযাত্রী বৃষ্টিতে ভেসে গেলো নেপাল-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ, সুপার এইটে দক্ষিণ আফ্রিকা বেনজীরের আরো সম্পত্তি ও টেলিভিশন ক্রোকের নির্দেশ বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটারে গ্রাহকদের ভোগান্তি, তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের দেশের কারাগারে ৩৬৩ বিদেশি, বেশি ভারতের ছয় অঞ্চলে তাপপ্রবাহ, অস্বস্তিকর গরম থাকতে পারে কয়েকদিন কুয়েতে শ্রমিকদের আবাসিক ভবনে আগুন, নিহত ৪১ ড. ইউনূসের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে: দুদক পিপি ব্রিকসে বাংলাদেশ যুক্ত হলে সহযোগিতার নতুন দুয়ার খুলবে তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী

লেনিন নয়, নেতাজির পথে ফিরছে ফরওয়ার্ড ব্লক!

রক্তিম দাশ, কলকাতা / ৭৮ বার
আপডেট : মঙ্গলবার, ১২ এপ্রিল, ২০২২

মার্কস-এঙ্গেলস-লেনিন নয়, নেতাজির পথেই ফিরছে ফরওয়ার্ড ব্লক। স্বাধীনতা পরবর্তী চিরপরিচিত লাল রংয়ের মধ্যে কাস্তে হাতুড়ি প্রতীক বাতিল করে এবার ফরওয়ার্ড ব্লক নতুন পতাকা গ্রহণ করেছে। ভারত জুড়ে বামপন্থা নিশ্চিহ্ন হওয়ার মুখে দাঁড়িয়ে রাজনৈতিক প্রাসঙ্গিকতা  ফিরে পেতে বৈদেশিক সমাজতন্ত্রের আশ্রয় ছেড়ে তবে কি নেতাজির দেশীয় সমাজতন্ত্রকে হাতিয়ার করছে ফরওয়ার্ড ব্লক?-এমনই প্রশ্ন তুলছেন নেতাজী গবেষকরা।

জানা গেছে, ফরওয়ার্ড ব্লকের পতাকা বদলের জন্য দুইটি মত আসে। দলের একাংশ চাইছিলেন, পতাকায় কাস্তে হাতুড়ি থাকবে না। পতাকার রং লালও থাকবে না। নেতাজি সুভাষচন্দ্রের সময় গৃহীত পতাকাকে ফিরিয়ে আনতে হবে। যার রঙ হবে তিরঙ্গার রংয়ের। আর তার মধ্যে থাকবে উড়ন্ত বাঘ। অপর অংশ চাইছেন, লাল রংয়েরই পতাকা থাকবে। সেখানে উড়ন্ত বাঘ থাকবে, কাস্তে হাতুড়ি থাকবে না। কিন্তু দলের তামিলনাড়ু, কেরলের নেতারা পতাকা থেকে লাল রং সরাতে চাননি।

জানা যাচ্ছে, ২০২০ সালে ফরওয়ার্ড ব্লকের মাদুরাই পার্টি কংগ্রেসে এনিয়ে আলোচনা হলেও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া যায়নি। অবশেষে ভুবনেশ্বরে আয়োজিত ফরওয়ার্ড ব্লকের দুই দিনের জাতীয় কাউন্সিলের বৈঠকে সর্বসম্মতিতে এই নিয়ে প্রস্তাব পাশ হয়েছে। ১৯টি রাজ্যের ৪৬ জন প্রতিনিধি অংশ নিয়েছিলেন বৈঠকে।

দুই দিনের বৈঠক শেষে শনিবার সারা ভারত ফরওয়ার্ড ব্লকের সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত বিশ্বাস বৈঠকের সিদ্ধান্তের কথা জানান। নেতাজি সুভাষচন্দ্রের মতবাদে জোর দিয়ে পথ চলতেই এই সিদ্ধান্ত বলেই জানিয়েছে ফরওয়ার্ড ব্লকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। কেরলের কান্নুরে যখন পার্টি কংগ্রেসে সিপিএম মার্কস-এঙ্গেলস-লেনিন-স্ট্যালিনের কমিউনিজমে অবিচল থাকার কথা ঘোষণা করছে, ঠিক তখনই বাম মতবাদের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ানোরও স্পষ্ট ইঙ্গিত দিয়েছে ফরওয়ার্ড ব্লক।

ফরওয়ার্ড ব্লকের বাংলা কমিটির সম্পাদক নরেন চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘সুভাষচন্দ্র বসুর মতবাদ অনুসারে পথ চলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জাতীয় কাউন্সিলের বৈঠক থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তাই আমাদের পতাকায় কাস্তে-হাতুড়ি আর থাকছে না।’

১৯৩৯ সালে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু  প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ফরওয়ার্ড ব্লক। সেইসময় দলীয় পতাকায় কাস্তে-হাতুড়ি ছিল না। জানা যায়, ১৯৪৮ সালে চন্দননগরে ফরওয়ার্ড ব্লকের কনভেনশনে বর্তমান পতাকা নির্ধারিত হয়। পতাকা জুড়ে লাল রং। মাঝখানে লাফানো বাঘের ছবি। তার উপর কাস্তে-হাতুড়ি।

এদিকে ফরওয়ার্ড ব্লকের এই পতাকা বদলকে বিলম্বিত বোধোদয় বলে মন্তব্য করেছেন নেতাজি গবেষক পূরবী রায়। তিনি বলেন, ‘এটা অনেক আগেই করা উচিত ছিল। ১৯৫৩ সালে পার্টি কংগ্রেসে প্রয়াত অশোক ঘোষ এবং তৎকালীন নেতারা বললেন তারা বামপন্থী। আর সেটা রক্ষা করেই ৩৫ বছর তারা বাংলায় সরকারে থাকলেন। এই মতবাদ সুভাষ চাননি। তিনি কখনই মার্কস, লেনিন, মাও ভজনার কথা বলতে চাননি। তিনি ভারতীয় সমাজতন্ত্রের কথা বলতেন। নেতাজির এই দর্শন কখনই বর্তমান ফরওয়ার্ড ব্লক মানেনি। এখন লক্ষ্যচ্যুত হয়ে তারা সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছেন। এখন সময় অনেক পেরিয়ে গিয়েছে। কাস্তে-হাতুড়ি ফেলে দিয়ে আর তাদের নেতাজির ফরওয়ার্ড ব্লক হওয়া সম্ভব নয়।’

নেতাজী অনুরাগী তথা অল ইন্ডিয়া লিগ্যাল এইড ফোরামের সম্পাদক আইনজীবী জয়দীপ মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘সিপিএমের ভজনা করতে গিয়ে তারা নেতাজির আর্দশকে ভুলে গেলেন। নেতাজিকে যে কমিউনিস্ট পার্টি ‘তোজোর কুকুর’ বলেছিল তাদের সঙ্গে এতগুলো বছর তারা ঘর করলেন। তারা বড় অপরাধ করছেন নেতাজির তৈরি দলের নাম ব্যবহার করে।’

নেতাজি গবেষক ড.জয়ন্ত রায় বলেন, ‘নেতাজি কোনওদিনই তার কোনও পতাকাই লাল রং আর কাস্তে- হাতুড়ি ব্যবহার করেননি। এটা ঐতিহাসিক সত্য। নেতাজির আজাদ হিন্দ সরকারের পতাকা ছিল তেরঙার মাঝখানে চরকা। যেটা তৎকালীন কংগ্রেসের পতাকা। আর আজাদ হিন্দ ফৌজের পতাকা ছিল তেরঙার মাঝখানে উড়ন্ত বাঘ। সিলেবাস থেকে নেতাজিকে বাদ দেওয়া হল, কিন্তু ফরওয়ার্ড ব্লক নেতাজির অবমাননার কোনও প্রতিবাদে রাস্তায় নামল না। সবই কি ভোটের অংক? নেতাজি এই ফরওয়ার্ড ব্লক চাননি। এখন রং বদলে কি নেতাজির আর্দশে ফেরা যায়?’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর