বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ০৯:১৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সৌদি আরবে পৌঁছেছেন ১৫ লাখের বেশি বিদেশি হজযাত্রী বৃষ্টিতে ভেসে গেলো নেপাল-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ, সুপার এইটে দক্ষিণ আফ্রিকা বেনজীরের আরো সম্পত্তি ও টেলিভিশন ক্রোকের নির্দেশ বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটারে গ্রাহকদের ভোগান্তি, তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের দেশের কারাগারে ৩৬৩ বিদেশি, বেশি ভারতের ছয় অঞ্চলে তাপপ্রবাহ, অস্বস্তিকর গরম থাকতে পারে কয়েকদিন কুয়েতে শ্রমিকদের আবাসিক ভবনে আগুন, নিহত ৪১ ড. ইউনূসের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে: দুদক পিপি ব্রিকসে বাংলাদেশ যুক্ত হলে সহযোগিতার নতুন দুয়ার খুলবে তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী

বিদায়, অস্থিরতা আর আতংকের ২০২১

ভয়েসবাংলা প্রতিবেদক / ২৮৩ বার
আপডেট : শুক্রবার, ৩১ ডিসেম্বর, ২০২১

বিদায়ী বছরের সূর্য ডুবে গেছে। ২০২১ সালে ছিল নানান ঘটনাপ্রবাহ। করোনা অতিমারির মধ্যে কেটে গেলো আরও একটি বর্ষপঞ্জিকা। আগামীকাল উঠবে নতুন সূর্য। আলো আসবেই, আর সেই নতুন আলোয় আবার আলোকিত হয়ে উঠবে গোটা পৃথিবী।

সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য উপলক্ষ্য ছিল স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী। বেশ জাঁকজমকভাবে পালিত হয়েছে বাংলাদেশের স্বাধীনতা এবং বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী। দুটি আয়োজনে অংশ নিতে পৃথকভাবে ঢাকায় এসেছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

অতিমারির ধকল কাটিয়ে একরকম ঘুরে দাঁড়ানোর প্রয়াস ছিল বছরজুড়ে। তৈরি পোশাক খাতের রফতানি কমে গেলেও ধীরে ধীরে সামলে ওঠা গেছে। সুখকর খবর ছিল, দেশের রিজার্ভ ৪৮ বিলিয়ন ডলারের রেকর্ড এবং মাথাপিছু আয় বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৫৫৪ ডলার। একইসঙ্গে বেড়েছে জীবনযাত্রার ব্যয়।

করোনার প্রকোপ থেকে মানুষকে রক্ষার্থে এ বছর শুরু হয় টিকাদান কর্মসূচি। দেশে টিকার জোগান দিয়ে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করে সরকার। এখন পর্যন্ত প্রায় ১১ কোটি ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি শুরু হয়েছে বুস্টার ডোজ প্রদান। তবে করোনায় সংক্রমিত হয়ে দেশের বিভিন্ন অঙ্গনের বিশিষ্ট অনেকে মারা গেছেন।

ইতিবাচক কিছু খবরের মধ্যে রয়েছে মেট্রোরেলের টেস্ট রান। উত্তরার দিয়াবাড়ি থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত প্রথমবারের মতো চলেছে মেট্রোরেল। করোনায় থমকে যাওয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আবারও খুলেছে। এসএসসি পরীক্ষা হয়েছে, ফলও বেরিয়েছে। ক্রীড়াঙ্গনের সবচেয়ে বড় খবর, নারী ক্রিকেট দল বিশ্বকাপ ক্রিকেটে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। তারা টেস্ট মর্যাদাও পেয়েছে।

বছরের আলোচিত-সমালোচিত ঘটনার মধ্যে আছে সরকারের একজন প্রতিমন্ত্রীর মন্ত্রিত্ব হারানো। ডা. মুরাদ হাসান মন্ত্রিত্ব হারিয়ে কানাডার উদ্দেশে রওনা হন। কিন্তু সেদেশে ঢুকতে না পেরে দুবাই হয়ে আবারও দেশে ফিরে আসেন। তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে একাধিক মামলা হলেও তিনি এখনও গ্রেফতার হননি। নিজেদের নেতিবাচক কর্মকাণ্ডের জন্য গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম এবং আরও দুই পৌর মেয়র চেয়ার হারিয়েছেন। মানব পাচার, প্রতারণা এবং অর্থপাচারের অভিযোগে কুয়েতে বাংলাদেশের সংসদ সদস্য শহিদ ইসলাম পাপুলের কারাদণ্ড হয়।

রাজনীতিতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি আর বিদেশে চিকিৎসার সুযোগের দাবিতে বছরের শেষ প্রান্তে সরব থেকেছে বিএনপি। নির্বাচন কমিশন গঠন ইস্যুতে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে রাজনৈতিক দলগুলোর সংলাপ শুরু হলেও বিএনপি এতে অংশ নেবে না বলে জানিয়েছে। সহিংসতার কারণে আলোচনায় ছিল ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন। ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অনেক হতাহতের ঘটনা দেখা গেছে সারা দেশে।

সারাবছরই বিভিন্ন সহিংসতার তীরে বিদ্ধ হয়েছে দেশ। দুর্গাপূজার সময় গুজব রটিয়ে সাম্প্রদায়িক হামলায় উসকানি, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিবিরোধী আন্দোলনের নামে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন পোড়ানো, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি, নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে অস্থিরতা বিরাজ করেছে। আগুনে বস্তি পুড়েছে, পুড়েছে কারখানা। ঢাকার অদূরে রূপগঞ্জে একটি কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে ৫৫ জন নিহত হন। লঞ্চে আগুনের ঘটনা ছাড়াও লঞ্চডুবিতেও মানুষ মারা গেছে।

বহুল আলোচিত ব্লগার অভিজিৎ, প্রকাশক দীপন এবং বুয়েটের ছাত্র আবরার হত্যা মামলার রায় হয়। ঋণের টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের মামলার রায়ে সাবেক প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার মোট ১১ বছর কারাদণ্ড হয়েছে। তিনি এখন দেশের বাইরে। বাংলাদেশের ইতিহাসে একজন সাবেক প্রধান বিচারপতির কারাদণ্ড এটাই প্রথম। সমালোচিত হয়েছে কক্সবাজারে পর্যটককে ধর্ষণের ঘটনা।

বছরের শেষ সূর্যাস্ত (ছবি: সাজ্জাদ হোসেন)বছরের শেষ সূর্যাস্ত (ছবি: সাজ্জাদ হোসেন)

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক কাজী মারুফুল ইসলামের মতে, বছরটি ছিল বাংলাদেশের ঘুরে দাঁড়ানোর বছর। তিনি বলেন, ‘২০২১ ছিল আমাদের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর বছর। একইসঙ্গে আমরা গত ৫০ বছরে কতটুকু কী করতে পারলাম তার মূল্যায়ন ও পর্যালোচনার বছর ছিল এটি। সবমিলিয়ে বছরটা বিশেষ ছিল। কারণ করোনার অভিঘাত থেকে বেরিয়ে আসার একটা প্রয়াস ছিল আমাদের।’

অধ্যাপক কাজী মারুফুল ইসলামের দৃষ্টিতে, ‘করোনায় দেশের অর্থনীতি সরকারি ও বেসরকারি খাতের পূর্ণ অংশগ্রহণে মোটামুটিভাবে সামলে উঠছে। আমরা অনেকে আশঙ্কা করছিলাম, অর্থনীতির ওপর একটা তীব্র আঘাত আসবে। যদিও সেরকম ভয়ানক পরিস্থিতি হয়নি। অর্থনীতির দিক দিয়ে আমরা তেমন কোনও বিপদে পড়িনি। ২০২১ সাল ছিল অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানোর সময়কাল। ঘুরে দাঁড়ানোর যে সক্ষমতা তা আমরা কিছুটা হলেও দেখাতে পেরেছি। হতাশার কথাও শোনালেন ঢাবি’র ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের এই অধ্যাপক, ‘করোনায় দুই কোটির কাছাকাছি মানুষ নতুনভাবে দারিদ্রের মধ্যে পড়েছে। তাদের জন্য বিশেষ কোনও সহায়তা দেখা যায়নি। আর উন্নয়নের মেগা প্রকল্পগুলো চলছে, সেগুলোর কোনও উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন দেখিনি। উন্নয়নের সঙ্গে শাসনব্যবস্থা জড়িত। বিগত বছরগুলোতে যে চিত্র দেখা গেছে, সেসবের মাত্রা আরও বেড়েছে ২০২১ সালে। যেমন বলা যায়– জবাবদিহিতার জায়গা আরও কমেছে, দুর্নীতি কমেনি, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও ভিন্নমত প্রকাশের জায়গা সংকুচিত হয়েছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপব্যবহার কমেনি, বরং আরও বেড়েছে। অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা আমরা দৃশ্যমান করতে পেরেছি, এর সঙ্গে রাজনীতির সুশাসনের পরিবেশ যদি সৃষ্টি করতে না পারি তাহলে অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন অর্জন করা আমাদের জন্য দুরূহ হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর