বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ০৯:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সৌদি আরবে পৌঁছেছেন ১৫ লাখের বেশি বিদেশি হজযাত্রী বৃষ্টিতে ভেসে গেলো নেপাল-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ, সুপার এইটে দক্ষিণ আফ্রিকা বেনজীরের আরো সম্পত্তি ও টেলিভিশন ক্রোকের নির্দেশ বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটারে গ্রাহকদের ভোগান্তি, তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের দেশের কারাগারে ৩৬৩ বিদেশি, বেশি ভারতের ছয় অঞ্চলে তাপপ্রবাহ, অস্বস্তিকর গরম থাকতে পারে কয়েকদিন কুয়েতে শ্রমিকদের আবাসিক ভবনে আগুন, নিহত ৪১ ড. ইউনূসের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে: দুদক পিপি ব্রিকসে বাংলাদেশ যুক্ত হলে সহযোগিতার নতুন দুয়ার খুলবে তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে: সংসদে প্রধানমন্ত্রী

অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে: ইফতেখারুজ্জামান

ভয়েসবাংলা প্রতিবেদক / ৯২ বার
আপডেট : শুক্রবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০২১

অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা করার যে পরিবেশ দরকার, সেটা নিশ্চিত করার দায়িত্ব রাষ্ট্র ও সরকারের। তারা সেটা করতে অঙ্গীকারবদ্ধ এবং সংবিধানও সেটা নিশ্চিত করেছে।

বৃহস্পতিবার টিআইবি’র ধানমন্ডির কার্যালয়ে ‘বাংলাদেশে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা গণমাধ্যমের চ্যালেঞ্জ শীর্ষক একটি আলোচনা অংশ নিয়ে সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালন ড. ইফতেখারুজ্জামান এমন মন্তব্য করেন। আলোচনার সভাশেষে দুর্নীতিবিরোধী অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কার ২০২১ ঘোষণা করা হয়। এতে অন্যদের মধ্যে অংশ নেন চ্যানেল টোয়েন্টি ফোরের নির্বাহী পরিচালক তালাত মামুন, ঢাকা ট্রিবিউনের নির্বাহী সম্পাদক রিয়াজ আহমেদ, বৈশাখী টেলিভিশনের প্ল্যানিং কনসালট্যান্ট জুলফিকার আলি মাণিক, এমআরডিআই এর অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা হেল্প ডেস্কের প্রধান মোহাম্মদ বদরুদ্দোজা, গ্লোবাল ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিজম নেটওয়ার্কের রোভিং এশিয়া এডিটর মিরাজ আহমেদ চৌধুরী এবং একাত্তর টেলিভিশনের অ্যাসাইনমেন্ট এডিটর সুজন কবির।

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা করার যে পরিবেশ দরকার, সেটা নিশ্চিত করার দায়িত্ব রাষ্ট্র ও সরকারের। গণমাধ্যমসহ সকল সামাজিক সংগঠন এবং ব্যক্তির দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার পরিবেশ সরকারকেই নিশ্চিত করতে হবে। তবে সাম্প্রতিককালে বিভিন্ন ধরনের চাপ, বিশেষ করে- বাক স্বাধীনতাসহ অন্যান্য মৌলিক অধিকার চর্চা থেকে বিরত রাখার জন্য এক ধরনের প্রতিকূল পরিবেশ সৃষ্টি হচ্ছে। আমরা সরকারকে মনে করিয়ে দিতে চাই যে, আমাদের সংবিধান এটি সমর্থন করে না।

অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা বিষয়ে বক্তারা বলেন, অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় সবসময়ই চ্যালেঞ্জ ছিল ও থাকবে। তাই বলে সমস্যার কারণে কাজ থামিয়ে দেওয়া যাবে না। বিকল্পভাবে কাজ করার চেষ্টা করতে হবে। বর্তমানে দেশে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার গুণগত দিক আরও উন্নত করার সুযোগ রয়েছে।

এবছর বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে মোট দুইজন ক্যামেরাপারসনসহ ১০ জন সাংবাদিককে এই পুরস্কার দেওয়া হয়। আঞ্চলিক সংবাদপত্র বিভাগে যৌথভাবে এ পুরস্কার অর্জন করেন সিলেটের ‘সিলেট ভয়েজ ডট কম’ এর রিপোর্টার শরীফ উদ্দিন তানু মিয়া এবং খুলনার দৈনিক পূর্বাঞ্চলের স্টাফ রিপোর্টার এইচ এম আলাউদ্দিন। জাতীয় সংবাদপত্র বিভাগে বিজয়ী হন ‘দৈনিক প্রথম আলো’ পত্রিকার সাবেক স্টাফ রিপোর্টার আহমেদ জায়িফ।

ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া- প্রতিবেদন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছেন, চ্যানেল টোয়েন্টি ফোরের সিনিয়র রিপোর্টার মুহাম্মদ মুকিমুল আহসান হিমেল। আর জলবায়ু অর্থায়নে সুশাসন বিষয়ক জাতীয় সংবাদপত্র বিভাগে বিজয়ী হয়েছেন অনলাইন পত্রিকা রাইজিং বিডি ডট কমের প্রতিবেদক মো. রফিকুল ইসলাম এবং টেলিভিশন বিভাগে বিজয়ী হয়েছেন একাত্তর টেলিভিশনের স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট মুফতি পারভেজ নাদির রেজা।

টিভি প্রতিবেদন তৈরিতে ভিডিওগ্রাফিতে বিশেষ অবদান রাখায় একাত্তর টেলিভিশনের ক্যামেরাপারসন মো. আলম হোসাইন এবং চ্যানেল টোয়েন্টি ফোরের সিনিয়র ক্যামেরাপারসন মোমিনুল হক আফান বিচারকদের বিবেচনায় বিশেষ সম্মাননা অর্জন করেছেন। বিজয়ীদের প্রত্যেকে ব্যক্তিগত সম্মাননাপত্র, ক্রেস্ট ও এক লক্ষ পঁচিশ হাজার টাকা পুরস্কার লাভ করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর