বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৪:১৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার ও গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেছেন, সংঘর্ষ-ভাঙচুরের ঘটনায় অভিযান চালিয়ে আমরা অনেককে গ্রেফতার করেছি। তারা আমাদের অনেক নাম দিয়েছে। যারা জড়িত সকলের নাম আছে। সময় হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। বুধবার (১৭ জুলাই) বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ভিসি চত্বরে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এসব কথা বলেন। হারুন বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রেলের স্লিপার খুলতে পারে না, মেট্রো স্টেশন ভাঙচুর করতে পারে না, হাইওয়েও আটকাতে পারে না। বিশেষ একটি মহল তাদের ওপর ভর করে এমন কার্যক্রম চালাচ্ছে। জড়িত সবার নাম আছে, সময় হলে ব্যবস্থা: ডিবি হারুন কোটা আন্দোলনের কর্মসূচি বিএনপি-জামায়াত ঠিক করে দিচ্ছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলন সাধারণ ছাত্রদের হাতে নেই ঢাকায় বৃহস্পতিবার মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশের ডাক হল ছাড়ছেন ঢাবি শিক্ষার্থীরা ঢাবি ক্যাম্পাসজুড়ে পুলিশ, হলগুলো ফাঁকা সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের হত্যাকাণ্ড ও অনভিপ্রেত ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে: প্রধানমন্ত্রী আদালতের রায় আসা পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ধৈর্য ধরার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

বিজয় দিবসের কুচকাওয়াজে অংশ নিতে আমন্ত্রণ পাচ্ছে ভারত, রাশিয়া, মেক্সিকো ও ভুটান

ভয়েস বাংলা প্রতিবেদক / ১৩৩ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৭ অক্টোবর, ২০২১

এবারের বিজয় দিবসের কুচকাওয়াজে অংশ নিতে ভুটান, ভারত, রাশিয়া ও মেক্সিকোর টিম ঢাকায় আসবে। বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে সহায়তাকারী দেশ হিসেবে ভারত, রাশিয়া ও মেক্সিকো এবং প্রথম স্বীকৃতি প্রদানকারী দেশ হিসেবে ভুটানকে এই ঐতিহাসিক কুচকাওয়াজে অংশ নিতে বাংলাদেশের পক্ষে আমন্ত্রণ জানাবে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ। সম্মিলিত বাহিনীর কুচকাওয়াজের অংশ হিসেবে এবার মন্ত্রণালয়ভিত্তিক উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের যান্ত্রিক বহরের প্রদর্শনী হবে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে জাতীয় কর্মসূচি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটি করা হয়েছে। উদ্যোক্তা মন্ত্রণালয় ও সরকারের সিনিয়র মন্ত্রী হিসেবে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হক এ কমিটির আহবায়কের দায়িত্ব পালন করছেন। এ উপলক্ষে কয়েকটি উপকমিটিও করা হয়েছে।

চলতি ২০২১ সালের ১৬ ডিসেম্বর দুটো কারণে বিশেষ তাৎপর্যবাহী। প্রথমত. এ বছরের আনুষ্ঠানিকভাবে শেষ হবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী তথা মুজিববর্ষ। একইসঙ্গে বিজয়ের ৫০ বছর হবে এদিন। আর তাই স্মরণকালের সেরা বিজয়োৎসব উদযাপন করতে চায় সরকার। এ বিষয়ে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত উদযাপন কমিটির নেয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সরকার ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে। বিজয় দিবসের মূল অনুষ্ঠান বিশেষ করে জাতীয় কুচকাওয়াজ প্রতিবছরের মতো এবছরও হবে জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে। করোনা মহামারি সামলে ওঠার প্রেক্ষাপটে এবার প্যারেড স্কয়ারে হবে সম্মিলিত বাহিনীর বর্ণিল কুচকাওয়াজ। সেখানে অনুষ্ঠিতব্য কুচকাওয়াজেই অংশ নেবে নেপাল, ভারত, রাশিয়া ও মেক্সিকো। বিজয় দিবসের কর্মসূচিতে ভারত ও রাশিয়ার ওয়ার ভেটেরানদের (প্রবীণ যোদ্ধা) সস্ত্রীক বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানানো হবে। তাদের সম্মানে আয়োজিত কর্মসূচির অন্যতম আকর্ষণ হবে সম্মিলিত বাহিনীর কুচকাওয়াজ।

সূত্র জানিয়েছে, এবারের বিজয়োৎসব উদযাপনে ৭টি কমিটি করা হয়েছে। এগুলো হলো—মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিবের নেতৃত্বে বিজয় দিবস উদযাপন স্টিয়ারিং কমিটি, ৯ পদাতিক ডিভিশন জিওসিকে আহ্বায়ক করে সম্মিলিত বাহিনীর কুচকাওয়াজ ব্যবস্থাপনা কমিটি, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবকে প্রধান করে আলোচনা ও বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ সংক্রান্ত উপকমিটি, সেনাবাহিনীর সাভারের ৯ পদাতিক ডিভিশন জিওসিকে (জেনারেল অফিসার কমান্ডিং) আহ্বায়ক করে জাতীয় স্মৃতিসৌধে সশস্ত্র অভিবাদন ও পুষ্পস্তবক অর্পণ কমিটি, যান্ত্রিক বহর প্রদর্শন সংক্রান্ত মূল্যায়ন ও স্থান নির্ধারণ সংক্রান্ত উপকমিটি, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের (প্রশাসন) নেতৃত্বে আমন্ত্রণ ও সংবর্ধনা উপকমিটি এবং ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনারকে প্রধান করে নিরাপত্তা ট্রাফিক ও পুলিশের ব্যবস্থাপনা উপকমিটি।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, মেক্সিকোর স্বাধীনতার ২০০ বছর উপলক্ষে দেশটির সরকারের আমন্ত্রণে ১৬ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর ৩৯ সদস্যের একটি কন্টিনজেন্ট অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছিল। এ জন্য বাংলাদেশের বিজয়োৎসবে মেক্সিকোকেও আমন্ত্রণ জানানো হবে। অপরদিকে স্বাধীনতাযুদ্ধে সাহায্যকারী বন্ধুপ্রতিম ভারত ও রাশিয়াকেও আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। একই সঙ্গে বাংলাদেশকে স্বীকৃতিদানকারী প্রথম দেশ হিসেবে ভুটানও পাচ্ছে আমন্ত্রণ।

জানা গেছে, এবার তেজগাঁও পুরান বিমানবন্দরের জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে সকাল সাড়ে ১০টায় বীর মুক্তিযোদ্ধা, সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বিমানবাহিনী, বিএনসিসি, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ, কোস্টগার্ড, পুলিশ, র‌্যাব, আনসার ও ভিডিপি এবং কারারক্ষীদের অংশগ্রহণে বর্ণাঢ্য কুচকাওয়াজ হবে। একইসঙ্গে বিমানবাহিনীর বিশেষ ফ্লাই-পাস্ট ও অ্যারোবেটিক এয়ার শো থাকবে। থাকবে উড়ন্ত হেলিকপ্টার থেকে রজ্জু বেয়ে অবতরণ ও প্যারাসুট জাম্প। রাষ্ট্রপতি চলন্ত যান্ত্রিক সামরিক কন্টিনজেন্টের সালাম গ্রহণ ও কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করবেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর