বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১১:৩৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার ও গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেছেন, সংঘর্ষ-ভাঙচুরের ঘটনায় অভিযান চালিয়ে আমরা অনেককে গ্রেফতার করেছি। তারা আমাদের অনেক নাম দিয়েছে। যারা জড়িত সকলের নাম আছে। সময় হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। বুধবার (১৭ জুলাই) বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ভিসি চত্বরে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এসব কথা বলেন। হারুন বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রেলের স্লিপার খুলতে পারে না, মেট্রো স্টেশন ভাঙচুর করতে পারে না, হাইওয়েও আটকাতে পারে না। বিশেষ একটি মহল তাদের ওপর ভর করে এমন কার্যক্রম চালাচ্ছে। জড়িত সবার নাম আছে, সময় হলে ব্যবস্থা: ডিবি হারুন কোটা আন্দোলনের কর্মসূচি বিএনপি-জামায়াত ঠিক করে দিচ্ছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলন সাধারণ ছাত্রদের হাতে নেই ঢাকায় বৃহস্পতিবার মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশের ডাক হল ছাড়ছেন ঢাবি শিক্ষার্থীরা ঢাবি ক্যাম্পাসজুড়ে পুলিশ, হলগুলো ফাঁকা সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের হত্যাকাণ্ড ও অনভিপ্রেত ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে: প্রধানমন্ত্রী আদালতের রায় আসা পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ধৈর্য ধরার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতির পক্ষে ভোট, ক্ষমতাসীন দল থেকে পদত্যাগ অস্ট্রেলীয় সিনেটর ফাতিমার

ভয়েস বাংলা প্রতিবেদক / ৯ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই, ২০২৪

অস্ট্রেলিয়ার লেবার পার্টির সিনেটর ফাতিমা পেমান ক্ষমতাসীন লেবার পার্টির বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ার কয়েক দিনের মাথায় পদত্যাগ করেছেন। ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের স্বীকৃতির সমর্থনে একটি প্রস্তাবে ভোট দেওয়ায় তিনি লেবার পার্টির কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন। বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) ২৯ বছর বয়সী এই সিনেটর পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।
সিদ্ধান্তটি তার জন্য ‘গভীরভাবে যন্ত্রণাদায়ক’ ছিল উল্লেখ করে সিনেটর পেমান বলেছেন, এটি এমন একটি বিষয় যা নিয়ে আমি কখনোই আপস করতে পারি না।
প্রধানমন্ত্রী অ্যান্টনি আলবানিজ বলেছেন, ফাতিমা পেমান কোনও ধরনের চাপের কারণে পদত্যাগ করেননি বলে তাকে জানিয়েছেন। পেমান এখন স্বাধীন সিনেটর হিসেবে ক্রস বেঞ্চে যোগ দেবেন।
১৯৯৬ সালে আফগানিস্তানে তালেবান প্রথমবার ক্ষমতা দখলের পর পরিবারসহ অস্ট্রেলিয়া গমন করেন ফাতিমা পেমান। অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ও একমাত্র হিজাব পরিহিত কেন্দ্রীয় রাজনীতিবিদ তিনি।
পদত্যাগের সময় এক সংবাদ সম্মেলনে ফাতেম পেমান বলেছেন, আমার সহকর্মীদের মতো নয়, আমি অন্যায়ের শিকার হওয়ার কষ্ট অনুভব করেছি। মানুষের ওপর নির্যাতন দেখে নীরব থাকার জন্য আমার পরিবার যুদ্ধে বিধ্বস্ত দেশ থেকে শরণার্থী হয়ে পালিয়ে অস্ট্রেলিয়া আসেনি।
গাজা সংকট অস্ট্রেলিয়ার রাজনৈতিক অঙ্গনে একটি উত্তেজনাপূর্ণ ইস্যু হয়ে উঠেছে। দেশটির সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে দুই রাষ্ট্র সমাধানের পক্ষে। কিন্তু যেকোনও শান্তি প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি যুক্ত করার একটি প্রস্তাব পাস করতে ব্যর্থ হয়েছে সরকার।
ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী ৭ অক্টোবর দক্ষিণ ইসরায়েলে হামাসের নেতৃত্বে একটি নজিরবিহীন হামলার প্রতিক্রিয়ায় গাজা শাসনকারী হামাস গোষ্ঠীকে ধ্বংস করার জন্য একটি অভিযান শুরু করে, যার ফলে প্রায় ১,২০০ জন নিহত এবং ২৫১ জনকে জিম্মি করা হয়। গাজার হামাস-পরিচালিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মতে, তখন থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৮ জনসহ মোট ৩৭,৯০০ জন নিহত হয়েছে।
পেমান জানিয়েছেন, মঙ্গলবার গ্রিন পার্টির সঙ্গে প্রস্তাবে ভোট দেওয়ার পর থেকে তিনি কয়েকজন সহকর্মীদের কাছ থেকে ‘সমর্থন’ পেয়েছেন এবং ‘দলের নীতিতে থাকার জন্য চাপ’ অনুভব করেছেন। তিনি ‘হত্যার হুমকি এবং বেশ কিছু ভীতিকর ইমেইল’ পাওয়ার কথাও জানিয়েছেন।
প্রধানমন্ত্রী আলবানিজ রবিবার পেমানকে অনির্দিষ্টকালের জন্য দল থেকে বরখাস্ত করেছিলেন। তিনি একাধিকবার দাবি করেছেন, পেমান যদি দলের নেতা হিসেবে ভূমিকা রাখতে আগ্রহী হন তাহলে আবারও ককাসে যোগ দিতে পারেন। কিন্তু পেমান এক বিবৃতিতে বলেছেন, তাকে লেবার পার্টি ‘নির্বাসিত’ করেছে এবং দলের বৈঠক, গ্রুপ চ্যাট এবং সব কমিটি থেকে বাদ দিয়েছে।
৭ অক্টোবর দক্ষিণ ইসরায়েলে হামাস যোদ্ধাদের হামলায় এই যুদ্ধের সূত্রপাত। ইসরায়েলি পরিসংখ্যান অনুসারে, ফিলিস্তিনি যোদ্ধাদের হামলায় ১ হাজার ২০০ জন নিহত এবং প্রায় ২৫০ জন বেসামরিক নাগরিক ও সেনাকে অপহরণ করে গাজায় নিয়ে যাওয়া হয়।
গাজা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, ইসরায়েলের প্রতিশোধমূলক আক্রমণে প্রায় ৩৮ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন এবং উপকূলীয় ঘনবসতিপূর্ণ ছিটমহলটি ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর