সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ০৫:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আর্জেন্টিনার ঐতিহাসিক হ্যাটট্রিক শিরোপার হাতছানি কোপায় আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়া ও ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ ইংল্যান্ড-স্পেন মুখোমুখি যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ গুপ্তহত্যার প্রচেষ্টা নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা অলি তিন হাজার বাংলাদেশি কর্মী নেবে ইইউভুক্ত চার দেশ : পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় রপ্তানি ট্রফি প্রদান দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে না : প্রধানমন্ত্রী ট্রাম্পের ওপর হামলায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নিন্দা রাষ্ট্রপতির কাছে স্মারকলিপি জমা দিলেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ট্রাম্পের হামলাকারীর নাম পরিচয় জানালো এফবিআই

দেশ রক্ষায় জাতীয় সরকার ছাড়া উপায় নেই: রব

ভয়েসবাংলা প্রতিবেদক / ২৩৮ বার
আপডেট : বুধবার, ২ মার্চ, ২০২২

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, ‘দেশকে রক্ষা করতে হলে জাতীয় সরকার গঠন করা ছাড়া কোনও উপায় নেই। সরকার ক্ষমতায় থেকে জনগণের সাংবিধানিক অধিকার ধ্বংস করে দিলো। এই দল ক্ষমতায় থাকলে কখনও নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব হবে না।’

বুধবার (২ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবের মিলনায়তনে ঐতিহাসিক পতাকা উত্তোলন দিবসের ৫১ বছর উপলক্ষে জেএসডি আয়োজিত স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকী, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরামের সভাপতি মোস্তফা মহসিন মন্টু, নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, অ্যাডভোকেট হাসনাত কাইয়ুম, গণ অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর প্রমুখ।

এ অনুষ্ঠানে আ স ম আবদুর রব বলেন, আমি পরিষ্কার করে বলতে চাই, এই সরকারের অধীনে আমরা কোনও নির্বাচন করবো না। আমরা এই সরকারকে মানি না। আন্দোলনের মধ্য দিয়ে সরকারের পদত্যাগের পর ঐক্যবদ্ধভাবে ন্যূনতম সময়ের মধ্যে ভোটাধিকার নিশ্চিত করা হবে। নির্বাচন কমিশন করে ফাজলামো করে কোনও লাভ হবে না। বর্তমান সরকারের ওপর জনগণের আস্থা নেই। তিনি বলেন, এই সরকার সব খেয়ে ফেলেছে। দেশটাও খেয়ে ফেলছে, স্বাধীনতা খেয়ে ফেলছে। তাই আমি আজ পতাকা উত্তোলনের কোনও স্মৃতিচারণ করবো না। ৫০ বছরের স্বাধীন বাংলাদেশকে সরকার নৈতিকভাবে ধ্বংস করে দিয়েছে। প্রশাসনকে দলীয় সম্পদে রূপান্তর করা হয়েছে।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন প্রসঙ্গে প্রথম পতাকা উত্তোলনকারী এই নেতা বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে যাদের অবদান তাদের কাউকেই এই সরকার স্মরণ করে না। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করছে হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করে, কিন্তু মাওলানা ভাসানীর নামটা একবার উচ্চারণ করা হয়নি। বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে যিনি নয় মাস সরকার চালিয়েছেন, সেই তাজউদ্দীনের নামটাও একবার উচ্চারণ করা হয়নি। মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেল এমএজি ওসমানীর নামও একবার উচ্চারণ করেনি। কাদের সিদ্দিকীর নাম একবার উচ্চারণ করা হয়নি। স্বাধীনতার ইতিহাস এক দল ও এক পরিবারের কাছে বলি দেওয়া হয়েছে।

বিএনপিকে ডা. জাফরুল্লাহর পরামর্শ নিতে বলেছেন মান্না

জনগণের অধিকার যথাযথভাবে প্রতিষ্ঠা করতে বিএনপিকে ডা. জাফরুল্লাহর পরামর্শ নিতে বলেছেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না। বুধবার (২ মার্চ) জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ঐতিহাসিক পতাকা উত্তোলন দিবসের ৫১ বছর উপলক্ষে আয়োজিত স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি এই অনুষ্ঠান আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর সঙ্গে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে। তবে তিনি আসেননি। মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আমি জানি না মির্জা ফখরুল কেন আসেননি। তিনি অসুস্থতার কথা বলেছেন, হয়তো এজন্যই আসেননি।

গরিক ঐক্যের আহ্বায়ক বলেন, যারা ভোট হরণ করেছে, ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে, যাদের আমলে হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার হয়েছে, তাদের বিচার হবে না এটা কি হয়? আমরা সবাই বিশ্বাস করি, আন্দোলন করলে সরকারের পতন হবে। তিনি বলেন, ‘শেখ মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে সিরাজ সিকদার আন্দোলন করেছিল, বঙ্গবন্ধুর কি পতন হয়েছিল? হয় নাই। জিয়াউর রহমানের বিরুদ্ধে আমরা আন্দোলন করেছিলাম, তার কি পতন হয়েছিল? হয় নাই। আমরা সেভাবে পতন চাই না। আমরা চাই রাজনৈতিক মাধ্যমে সরকারের পতন হোক। যে যার জায়গা থেকে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর