সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৯:২৩ অপরাহ্ন

পর্যটক আকর্ষণের উদ্যোগ: ২৭ মে ইন্টারকন্টিনেন্টালে ট্যুরিজম মেলা

ভয়েস বাংলা রিপোর্ট / ২৩ বার
আপডেট : বুধবার, ২৪ মে, ২০২৩

শ্রীলঙ্কা, নেপাল, ভুটান, ভারত থেকে পর্যটক আকর্ষণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তাদের কাছে দেশের পর্যটনকে তুলে ধরতে আয়োজন করা হয়েছে মুজিব’স বাংলাদেশ ট্যুরিজম এক্সচেঞ্জ ও প্রমোশন অনুষ্ঠান। ২৭ মে দিনব্যাপী রাজধানীর ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে বাংলাদেশের পর্যটনকে তাদের সামনে উপস্থাপন করা হবে। ২৮ মে চার দেশের প্রতিনিধির কক্সবাজারের সমুদ্র সৈকত, হোটেল, রেস্তোরাঁসহ বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান ও খাবার উপভোগ করার আয়োজন রাখা হয়েছে।

এই আয়োজনে অংশ নিতে ভারতের ৪৫ জন, নেপালের ১২ জন, ভুটানের ১২ জন ও শ্রীলঙ্কার ২০ জন ট্যুর অপারেটর ও পর্যটন সংশ্লিষ্টরা বাংলাদেশে আসবেন। ২৬ মে তাদের ঢাকা শহরের ঐতিহ্যবাহী স্থানগুলো ঘুরে দেখানো হবে। এছাড়া বাংলাদেশের বিভিন্ন শপিং মল, হোটেল পরিদর্শন করবেন তারা।

করোনা মহামারির পর দেশে পর্যটক আকর্ষণে বড় ধরনের কোনও আয়োজন করতে পারেনি বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড। অন্যদিকে বিদেশযাত্রায় সরকারের নিষেধাজ্ঞা থাকায় দেশের বাইরে পর্যটন মেলায়ও অংশ নিতে পারেনি ট্যুরিজম বোর্ড। ফলে এক প্রকার থমকে ছিল দেশের পর্যটনের প্রচারণা। এমন পরিস্থিতিতে এই চার দেশের ৮৯ জন প্রতিনিধি বাংলাদেশে আসবেন।

বাংলাদেশে প্রতিবছর ৪-৫টি পর্যটন মেলা হয়। যেখানে বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। তবে এসব মেলায় বাংলাদেশের চেয়ে অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন দেশের পর্যটনের  প্রচারণা হয় বেশি। অন্যদিকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পর্যটন মেলায় বাংলাদেশকে তুলে ধরতে অংশ নেয় বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড। বিদেশযাত্রায় সরকারের নিষেধাজ্ঞা থাকায় সাম্প্রতিক সময়ের আন্তর্জাতিক মেলাগুলোতে অংশ নিতে পারেনি ট্যুরিজম বোর্ড। করোনা মহামারির পর বিদেশি পর্যটক আগমনের ধারার পরিবর্তন এসেছে। এখন দূরবর্তী দেশের চেয়ে প্রতিবেশী দেশগুলোকে প্রাধান্য দিয়ে বেশি প্রচারণা হচ্ছে। পার্শ্ববর্তী দেশগুলো থেকে পর্যটক আগমনের বিষয়ে অগ্রাধিকার বিয়ে প্রচারণার উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড। ২৬ থেকে ২৮ মে ঢাকায় ৪ দেশকে নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে “মুজিব’স বাংলাদেশ ট্যুরিজম প্রমোশন।

ট্যুরিজম বোর্ড জানিয়েছে,  দেশের ১২০টি হোটেল, এয়ারলাইনস, ট্যুর অপারেটর তাদের বিভিন্ন প্যাকেজ, অফার ৪ দেশের প্রতিনিধিদের সামনে উপস্থাপন করবেন। এছাড়া কুয়াকাটা, কক্সবাজার, সিলেট, পার্বত্য চট্টগ্রামেরও আলাদা প্যাভিলিয়ান থাকবে। দেশের পর্যটন ব্যবসায়ীরা ৪ দেশের অংশগ্রহণকারীদের পর্যটন বিকাশে তথ্য উপাত্ত তুলে ধরবেন।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবু তাহের মো. জাবের বলেন, পর্যটন খাতকে বিকশিত করতে হলে আমাদের সম্পর্কে বিশ্ববাসীকে জানাতে হবে। যত বেশি প্রচার হবে, তত বেশি সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে। এই মুহূর্তে আমরা প্রতিবেশী দেশগুলোকে টার্গেট করেছি। ট্যুরজিম প্রমোশনের জন্য বাংলাদেশের পর্যটন ব্যবসায়ীদের সাথে শ্রীলঙ্কা, নেপাল, ভুটান ও ভারতের ট্যুরিজম ব্যবসায়ীদের সম্পর্ক স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ৪ দেশ থেকে প্রতিনিধিরা আসবেন। বাংলাদেশের হোটেল, এয়ারলাইনস, ট্যুর অপারেটরদের সাথে বিজনেস মিটিং করবেন। এর ফলে আমাদের দেশে পার্শ্ববর্তী দেশ থেকে পর্যটক আসার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে।

আবু তাহের বলেন, ইতোমধ্যে আমরা সুফলও পেয়েছি। শ্রীলঙ্কান এয়ারলাইনস বাংলাদেশে আসার প্যাকেজ অফার দিয়েছে তাদের বিভিন্ন গন্তব্যে। অন্যান্যরাও বাংলাদেশ নিয়ে প্যাকেজ করবে আমরা প্রত্যাশা করছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর