সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ০৪:৪২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আর্জেন্টিনার ঐতিহাসিক হ্যাটট্রিক শিরোপার হাতছানি কোপায় আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়া ও ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ ইংল্যান্ড-স্পেন মুখোমুখি যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ গুপ্তহত্যার প্রচেষ্টা নেপালের নতুন প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা অলি তিন হাজার বাংলাদেশি কর্মী নেবে ইইউভুক্ত চার দেশ : পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় রপ্তানি ট্রফি প্রদান দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে না : প্রধানমন্ত্রী ট্রাম্পের ওপর হামলায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নিন্দা রাষ্ট্রপতির কাছে স্মারকলিপি জমা দিলেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ট্রাম্পের হামলাকারীর নাম পরিচয় জানালো এফবিআই

কপ-২৬ জলবায়ু সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আশরাফ আলী / ১৭৪ বার
আপডেট : শনিবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২১

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) সভাপতি হিসেবে আসন্ন কপ-২৬ জলবায়ু সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূমিকা হবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই সম্মেলনে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলার বৈশ্বিক উপায় নির্ধারণ করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

শনিবার সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম এবং পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন ব্রিফিংকালে উপস্থিত ছিলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বলেন, সিভিএফ সভাপতি হিসেবে বাংলাদেশ একটি জোরালো ভূমিকা পালন করছে। সম্মেলন অনুষ্ঠানের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘সিভিএফ-কপ২৬ লিডার্স ডায়লগ’ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন। কপ-২৬ এ যোগ দিতে রবিবার প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাজ্যের উদ্দেশে রওয়ানা দিবেন। সেখানে গ্লাসগোতে ১ নভেম্বর তিনি কপ-২৬ এর একটি উচ্চ-পর্যায়ের বৈঠকে বক্তব্য রাখবেন। তিনি বলেন, সম্মেলনের প্রধান আয়োজক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এর আগে বলেছিলেন, সম্মেলনটি অবশ্যই ‘মানবতার ইতিহাসে এক সন্ধিক্ষণ হয়ে থাকবে।’ এ সম্মেলনকালে শেখ হাসিনার সাথে তাঁর একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

মোমেন বলেন, ৪৮টি দেশের সিভিএফ সংলাপ জলবায়ু প্রভাব প্রশমন, অভিযোজন ও অর্থায়নের ওপর গুরুত্ব আরোপ করে ‘ঢাকা-গ্লাসগো ঘোষণা’ চূড়ান্ত করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে। শেখ হাসিনা প্রিন্স অব ওয়েলস প্রিন্স চার্লস এবং শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসাসহ অন্যান্য বিশ্ব নেতৃবৃন্দের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন। তিনি বলেন, ১ নভেম্বর শেখ হাসিনা সিভিএফ-কমনওয়েলথের একটি যৌথ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ গ্রহণ করবেন। সর্বাধিক জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ ৪৮টি দেশের সমন্বয়ে সিভিএফ গঠিত হয়েছে। পরের দিন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণে শেখ হাসিনা ‘অ্যাকশন অ্যান্ড সলিডারিটি-দি ক্রিটিকাল ডিকেড’ শীর্ষক এক বৈঠক এবং ‘উইমেন অ্যান্ড ক্লাইমেট’ শীর্ষক আরেকটি আলোচনা সভায় যোগ দিবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বলেন,  গ্লাসগো সফরের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৯ থেকে ১৩ নভেম্বর জাতিসংঘ আয়োজিত কয়েকটি কর্মসূচিতে যোগ দিতে ফ্রান্স সফর করবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্কটল্যান্ড পার্লামেন্টে স্কটিশ আইনপ্রণেতাদের সামনে ‘এ কল ফর ক্লাইমেট প্রসপারিটি’ শীর্ষক নিবন্ধ উপস্থাপন করবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ৩ থেকে ৮ নভেম্বর পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী লন্ডন সফর করবেন। সেখানে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ওয়েস্ট মিনিস্টার প্যালেসে ব্রিটিশ আইনপ্রণেতাদের সামনে তিনি বক্তব্য রাখবেন। এছাড়াও তিনি ভার্চুয়ালি বাংলাদেশ সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কমিশন এবং বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট ডেভেলপমেন্ট অথরিটি (বিডা) আয়োজিত এক বিনিয়োগ সম্মেলনে যোগ দিবেন। শেখ হাসিনা লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনের উদ্যোগে প্রকাশিত বঙ্গবন্ধুর ওপর ক্লাসিফাইড তথ্য সম্বলিত কয়েকটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ৯ নভেম্বর, বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী ইউনেস্কোর বিভিন্ন কর্মসূচিতে যোগ দিতে লন্ডন থেকে প্যারিস যাবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর প্যারিস সফরকালে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন। প্রধানমন্ত্রী ও ফরাসি প্রেসিডেন্টের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর দু’দেশের মধ্যে বেশ কয়েকটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) এবং লেটার অব ইন্টেন্ট স্বাক্ষরিত হবে।

মোমেন বলেন, ইউনেস্কো আগামী ১১ নভেম্বর ‘ইউনেস্কো-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ফর ক্রিয়েটভ ইকোনোমি’ পদক প্রদান করবে। এটা গোটা জাতির জন্য গর্বের বিষয় যে, ইউনেস্কো বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর নামে আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তন করেছে। বঙ্গবন্ধুর যোগ্য উত্তরসূরী হিসেবে তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্যারিসের এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন এবং বিজয়ীদের হাতে পদক তুলে দিবেন বলে আশা করা হচ্ছে। এছাড়া ইউনেস্কো ১২ নভেম্বর তাদের ৬৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে অংশ নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের লক্ষ্যে সার্বজনীন, মানসম্মত ও বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষা এবং সুস্থ ও অন্তর্ভুক্তিমূলক সংস্কৃতির গুরুত্ব সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সার্বজনীন আদর্শ তুলে ধরার পাশাপাশি তাঁর নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্যারিস সফরকালে ইউনেস্কোর মহাপরিচালক অড্রে আজুলে’র সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন। 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর