বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার ও গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেছেন, সংঘর্ষ-ভাঙচুরের ঘটনায় অভিযান চালিয়ে আমরা অনেককে গ্রেফতার করেছি। তারা আমাদের অনেক নাম দিয়েছে। যারা জড়িত সকলের নাম আছে। সময় হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। বুধবার (১৭ জুলাই) বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ভিসি চত্বরে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এসব কথা বলেন। হারুন বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রেলের স্লিপার খুলতে পারে না, মেট্রো স্টেশন ভাঙচুর করতে পারে না, হাইওয়েও আটকাতে পারে না। বিশেষ একটি মহল তাদের ওপর ভর করে এমন কার্যক্রম চালাচ্ছে। জড়িত সবার নাম আছে, সময় হলে ব্যবস্থা: ডিবি হারুন কোটা আন্দোলনের কর্মসূচি বিএনপি-জামায়াত ঠিক করে দিচ্ছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলন সাধারণ ছাত্রদের হাতে নেই ঢাকায় বৃহস্পতিবার মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশের ডাক হল ছাড়ছেন ঢাবি শিক্ষার্থীরা ঢাবি ক্যাম্পাসজুড়ে পুলিশ, হলগুলো ফাঁকা সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের হত্যাকাণ্ড ও অনভিপ্রেত ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে: প্রধানমন্ত্রী আদালতের রায় আসা পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ধৈর্য ধরার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

আফগান সরকারের নেতৃত্বে আসতে পারে নতুন মুখ

রিপোর্টার / ১৫৯ বার
আপডেট : মঙ্গলবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১

অপেক্ষাকৃত কম পরিচিত তালেবান নেতা মোল্লা হাসান আকুন্দ পরবর্তী আফগান সরকারের নেতৃত্বে আসতে পারেন। ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি’র প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে। আকুন্দ জাতিসংঘের সন্ত্রাসী তালিকা রয়েছেন।

গত ১৫ আগস্ট কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর তালেবানের সহ-প্রতিষ্ঠাতা মোল্লা আবদুল গনি বারাদারের নাম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শোনা যাচ্ছিলো। এরইমধ্যে নতুন করে জানা যাচ্ছে, সরকারপ্রধান হচ্ছেন মোল্লা হাসান আকুন্দ।

সূত্রের খবরের বরাতে এনডিটিভি’র প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আফগানিস্তানের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পেতে পারেন  তালেবানের ‘লাইটওয়েট’ নেতা মোল্লা হাসান আকুন্দ। মোল্লা বারাদার ও মোল্লা ওমরের ছেলে মোল্লা ইয়াকুব মোল্লা হাসান আখুন্দের ডেপুটি হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রধান নির্বাচিত হতে পারেন হাক্কানি নেটওয়ার্ক ও বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসের তালিকায় থাকা সিরাজ হাক্কানি। এ ছাড়া তালেবানের শীর্ষ নেতা হিবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা ‘সর্বোচ্চ নেতা’ হতে পারেন বলেও প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

২০০১ সালে তালেবান সরকারের পতনের পর মোল্লা হাসান আকুন্দ পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে গঠিত তালেবানের নেতৃত্ব পরিষদ ‘কোয়েটা সুরা’র দায়িত্বে ছিলেন। এর আগে তালেবান শাসনামলে তিনি আফগানিস্তানের মন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর