বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১১:৫৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার ও গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) প্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেছেন, সংঘর্ষ-ভাঙচুরের ঘটনায় অভিযান চালিয়ে আমরা অনেককে গ্রেফতার করেছি। তারা আমাদের অনেক নাম দিয়েছে। যারা জড়িত সকলের নাম আছে। সময় হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। বুধবার (১৭ জুলাই) বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ভিসি চত্বরে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এসব কথা বলেন। হারুন বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রেলের স্লিপার খুলতে পারে না, মেট্রো স্টেশন ভাঙচুর করতে পারে না, হাইওয়েও আটকাতে পারে না। বিশেষ একটি মহল তাদের ওপর ভর করে এমন কার্যক্রম চালাচ্ছে। জড়িত সবার নাম আছে, সময় হলে ব্যবস্থা: ডিবি হারুন কোটা আন্দোলনের কর্মসূচি বিএনপি-জামায়াত ঠিক করে দিচ্ছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী কোটা সংস্কার আন্দোলন সাধারণ ছাত্রদের হাতে নেই ঢাকায় বৃহস্পতিবার মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশের ডাক হল ছাড়ছেন ঢাবি শিক্ষার্থীরা ঢাবি ক্যাম্পাসজুড়ে পুলিশ, হলগুলো ফাঁকা সারা দেশে ‘কমপ্লিট শাটডাউন’ ঘোষণা আন্দোলনকারীদের হত্যাকাণ্ড ও অনভিপ্রেত ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে: প্রধানমন্ত্রী আদালতের রায় আসা পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ধৈর্য ধরার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

অক্টোবরে আগরতলা ও গোহাটিতে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব

রিপোর্টার / ১২৫ বার
আপডেট : বুধবার, ২৫ আগস্ট, ২০২১

কলকাতা: সাফল্যের সঙ্গে কলকাতায় তৃতীয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব হওয়ায়, আগরতলায় দ্বিতীয়বারের জন্য বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়। এর পাশাপাশি ভারতের আসাম রাজ্যের গোহাটিতে ১ম বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন করার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

ভারতের এই দুই রাজ্যে বসবাসরত বাংলা ভাষাভাষীদের মধ্যে বাংলাদেশি চলচ্চিত্রে উপর যথেষ্ট আগ্রহ রয়েছে। এই বিবেচনায় চলচ্চিত্র উৎসবের পরিকল্পনা করা হয়েছে। চলমান করোনা পরিস্থিতিতে সব ঠিক থাকলে চলতি বছরের অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহে অথবা কাছাকাছি সময় চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন করা হবে। দুই রাজ্যেই উৎসববের সহযোগিতা করবে আগরতলা ও গোহাটি বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশন।

এর আগে বাংলাদেশের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় উদ্যোগে এবং আগরতলা দূতাবাসের সহযোগিতায় ২০১৯ সালের ১৫ এবং ১৬ সেপ্টেম্বর ত্রিপুরা রাজ্যে প্রথম বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব আয়োজন করা হয়েছিল। সেবার যথেষ্ট জনপ্রিয়তার কারণে দ্বিতীয়বারের জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মূলত, চলচ্চিত্র উৎসবটি ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে এক অনবদ্য সোপান হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় ২০১৮ সালে প্রথম বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন করা হয়েছিল। সফল এবং জনপ্রিয়তার কারণে ২০১৮ থেকে ২০২১ সাল অব্দি কলকাতায়, তৃতীয়তম বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসবে আয়োজন করা হয়।

পাশপাশি জানা যায়, পরবর্তীতে পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়িতে এ উৎসবের আযোজনের পরিকল্পনা রয়েছে। এ পরিকল্পনার অন্যতম কারণ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব, পশ্চিমবঙ্গ এবং ত্রিপুরা তথা ভারতের সাংস্কৃতিক জগতের মানুষকে আনন্দিত করছে। ফলে ধারাবাহিকভাবে চলচ্চিত্র উৎসব আয়োজনে দুই দেশের সাংস্কৃতিক বন্ধনে আরও সুদৃঢ় হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর